খতিয়ান বের করার নিয়ম

0

আপনার জমির খতিয়ান ঠিক আছে কিনা এবং কোনো ভুল আছে কিনা অথবা আপনার জমির খতিয়ান যদি হারিয়ে যায় সেক্ষেত্রে অনলাইনে কিভাবে জমির খতিয়ান বের করবেন? এই আর্টিকেলের বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে খতিয়ান বের করার নিয়ম সম্পর্কে।

জমি ক্রয় বিক্রয়ের ক্ষেত্রে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ হল জমির সম্পর্কে জানা ,খতিয়ান জানা এবং জমির মালিকানা সম্পর্কে জানা। এছাড়াও আমরা যদি জমি বিক্রয় করতে চাই সে ক্ষেত্রে জমির খতিয়ান প্রয়োজন হবে। এছাড়াও জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন কার্যক্রমের জন্য খতিয়ানের প্রয়োজন দেখা দেয়।

যদি কোন কারণে আপনার জমির খতিয়ান আপনাদের কাছে না থাকে , কিংবা আপনি যে জমি কিনতে যাচ্ছেন সে জমির কাগজপত্র  যেমন মালিকানা ঠিক আছে কিনা সেটি অনলাইন থেকে আপনারা জমির খতিয়ান অনুসন্ধান করার মাধ্যমে জানতে পারবেন এবং খতিয়ান বের করতে পারবেন। ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটের ডাটাবেজে জমি সংক্রান্ত সকল তথ্য সংগ্রহ করা থাকে।

বর্তমানে ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট eporcha.gov.bd থেকে শুধুমাত্র কিছু তথ্য প্রদানের মাধ্যমে জমির আর এস / বিস/এস এ প্রভৃতি খতিয়ান বের করতে পারবেন। এবং জমির খতিয়ানের অনলাইন কিংবা সার্টিফাইড কঁপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

খতিয়ান বের করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য

অনলাইনের মাধ্যমে খতিয়ান অনুসন্ধান ও ডাউনলোড করার জন্য কিছু তথ্য প্রয়োজন হবে। অবশ্যই এই তথ্যগুলো আবেদনের পূর্বে সংগ্রহ করে রাখতে হবে।

  • জমির সঠিক স্থান বিভাগ, জেলা ও উপজেলা এবং মৌজা।
  • দাগ নং জমির মালিকানা নাম।
  • পর্চা  নাম জানা থাকতে হবে।
  • ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার এবং জন্মতারিখ।
  • একটি সচল মোবাইল নাম্বার।
  • পেমেন্ট করার জন্য উপায় একাউন্ট অথবা ekPay একাউন্ট।

খতিয়ান বের করার নিয়ম

খতিয়ান বের করার জন্য প্রবেশ প্রবেশ করুন এই লিংকে https://eporcha.gov.bd/  এবং মেনু থেকে “খতিয়ান” অপশনটি সিলেক্ট করুন। পরবর্তী পেইজে খতিয়ানের ধরন বাছাই করে বিভাগ জেলা উপজেলা ও মৌজা এবং আপনার খতিয়ান নাম্বার টি উল্লেখ করুন। সবশেষে অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করুন।

শুধুমাত্র খতিয়ান নম্বর নয় আপনি দাগ নম্বর কিংবা জমির মালিকের নাম দিয়েও জমির খতিয়ান বের করতে পারবেন। জমির খতিয়ান চেক করার পরে সেটি যদি আপনি সার্টিফাইড কপি ডাউনলোড করতে চান তাহলে আবেদন করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় ফি প্রদান করতে হবে।

খতিয়ান বের করতে পারবেন নিচের কয়েকটি স্টেপে

  1. eporcha সাইটে ভিজিট করুন

    খতিয়ান যাচাই করার জন্য ভিজিট করুন e porcha ওয়েবসাইটে। এরপরে আপনাদেরকে মেনু থেকে খতিয়ান অপশনটি সিলেক্ট করে নিতে হবে এবং সেখানে ভিজিট করতে হবে।
    খতিয়ান বের করার নিয়ম

  2. খতিয়ান যাচাই করুন

    এই পেজে আসার পরে আপনার খতিয়ানের ধরন সিলেক্ট করতে হবে যেমন আর এস পর্চা বা বি এস পর্চা অথবা আপনার যে পর্চা আপনি সেটি সিলেক্ট করে দিন।

    খতিয়ান বের করার নিয়ম

    এরপরে আপনার খতিয়ান টাইপ নির্বাচন করুন যেমন বি এস সি এস টি আর এস আর এস এস এ কিংবা অনন্য। আপনার পর্চা আপনি সিলেক্ট করুন এবং এরপরে বিভাগ জেলা উপজেলা এবং মৌজা সঠিকভাবে উল্লেখ করুন।

    যেহেতু আপনি খতিয়ান বের করবেন সেহেতু খতিয়ান নম্বর বক্সে খতিয়ান নাম্বার টি টাইপ করে দিবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে দাগ নম্বর অথবা মালিকানা নাম দিয়ে খতিয়ান বের করতে পারবেন এজন্য দাগ নম্বর অথবা মালিক নাম এর পূর্বে টিকমার্ক এ ক্লিক করুন এবং দাগ নম্বর অথবা মালিকের নাম উল্লেখ করুন।

    সবশেষে ছবিতে প্রদত্ত ক্যাপচার টি লিখুন এবং অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করুন।

  3. সার্টিফাইড কপির জন্য আবেদন করুন

    সঠিকভাবে খতিয়ান যাচাই করার পর নিচের ছবির মত একটি পেজ দেখতে পাবেন সেখানে খতিয়ানের দাগ নাম্বার এবং মালিকানার তথ্য দেখানো হবে । আপনি যদি খতিয়ান অনলাইন কপি সংগ্রহ করতে চান তাহলে আবেদন করুন বাটনটিতে ক্লিক করুন
    খতিয়ান বের করার নিয়ম


  4. ফি প্রদান করুন

    এই পেইজে আসার পর আপনাকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য গুলো প্রদান করতে হবে যেমন আপনার নাম ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার , জন্ম তারিখ, মোবাইল নাম্বার, ঠিকানা, ইত্যাদি।

    খতিয়ান ডাউনলোড

    অবশ্যই এ বিষয়টি সলেক্ট করতে ভুলবেন না যে আপনি খতিয়ান অনলাইন কপি নাকি সার্টিফাইড কপির জন্য আবেদন করতে চান সেটি সঠিক ভাবে সিলেক্ট করে দিবেন।

    সব তথ্য গুলো দেয়া হয়ে গেলে আপনি নির্ধারিত ফি প্রদান করতে পারবেন একপেই অথবা উপায় মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে।

    আপনি যদি খতিয়ান অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে কোন ফি প্রদান করতে হবে না আর যদি সার্টিফাইড কপি ডাউনলোড করতে চান সে ক্ষেত্রে 50 টাকা ফি প্রদান করতে হবে।

  5. খতিয়ান ডাউনলোড করুন

    ব্যক্তিগত তথ্য ও ফি প্রদান করার পরে আপনি সার্টিফাইড কপি বা অনলাইন কপি ডাউনলোড করার জন্য উপযুক্ত হয়ে যাবেন এর পরে আপনি আপনার খতিয়ান টি ডাউনলোড করতে পারবেন।


    আর এস খতিয়ান

    তবে খতিয়ানের অনলাইন কপি আপনি সার্টিফাইড কপি হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন না কিন্তু সার্টিফাইড কপি যে কোন কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।

 

ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে বিস্তারিত জানতে সরাসরি ভূমিসেবার হট লাইন নাম্বার এ যোগাযোগ করতে পারেন। ভূমি সেবা হটলাইন নাম্বার হলো 16122, ভূমি এবং পর্চা সংক্রান্ত যেকোন সমস্যার কারণে এই নাম্বারে যোগাযোগ করে আপনাদের সমস্যার সমাধান করে নিতে পারবেন। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.