ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম

3

ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম টা একেবারেই সহজ। আপনি যদি নতুন ভোটার নিবন্ধন করে থাকেন তাহলে আজকের এই পোস্ট ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম দেখে আপনি খুব সহজেই আপনার ভোটার নম্বর বের করা থেকে শুরু করে ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন এবং ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

আপনার কাছে যদি ভোটার স্লিপ নাম্বার থাকে তাহলে ভোটার স্লিপ নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের করার নিয়ম তো একেবারে আপনাদের কাছে অতি সহজ হয়ে যাবে। অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় আমরা ভোটার নিবন্ধন নতুন করার পরেই আমাদেরকে একটি স্লিপ দেওয়া হয় সেটাতে একটি নাম্বার উল্লেখ থাকে সেটি বলা হয় ভোটার স্লিপ।  তো আমরা যখন ভোটার নিবন্ধন কিন্তু তারপরেও অনেকদিন আপনাদের ভোটার আইডি কার্ড হাতে আসতে সময় লাগে এবং পরিপূর্ণ ভাবে আমাদের ভোটার আইডি কার্ডটি আমরা হাতে পেতে অনেকটা সময়  লাগে।  নির্বাচনের সময় আপনার ভোটার আইডি কার্ড না থাকলে আপনি ভোট  দিতে পারবেন না। যদি ভোটার লিস্টে আপনার নাম এসে থাকে তাহলে আপনি সেখান থেকেও আপনার ভোটার নাম্বার কালেক্ট করতে পারবেন অথবা অনলাইন থেকে ভোটার নাম্বার কালেক্ট করতে পারবেন। এজন্য ভোটার স্লিপ এর দরকার পড়বে।

আপনার যদি ভোটার আইডি কার্ড থেকে থাকে  অথবা আপনার ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে যদি হারিয়ে যায় তাহলেও আপনি অনলাইন থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। এছাড়াও আপনার ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার জানা থাকলে আপনি খুব সহজেই আপনার ভোটার নাম্বার বের করতে পারবেন। ও ভোটার আইডি কার্ড বের করার জন্য আমাদের যে দুটি জিনিসের প্রয়োজন হবে সে দুটি জিনিস হল ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার অথবা ভোটার স্লিপ নাম্বার। ভোটার স্লিপ নাম্বার সাধারণত দেখতে নিচের ছবির মত হবে ।,

ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম
ভোটার স্লিপ

আপনাদের সবার কাছেই যেন নতুন ভোটার নিবন্ধন হবেন তাদের কাছে এটা থাকবে। তো এই ভোটার নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের করার নিয়ম আজকে আপনাদের দেখাব। তো প্রথমেই আমি আপনাদেরকে পর্যায়ক্রমে দেখাবো ভোটার নম্বর বের করার নিয়ম।

সর্বশেষ আপডেট অনুযায়ী ভোটার তথ্য সার্ভিসটি নির্বাচন কমিশন কতৃক বন্ধ রয়েছে৷ আর তাই ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার জন্য বিকল্প উপায়ে আপনারা নিকটস্থ উপজেলা বা জেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করতে পারেন
। এছাড়া ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড কার্যক্রম টা চালু রয়েছে। সেটি জানতে পোস্ট টি পড়তে থাকুন।

ভোটার নাম্বার বের করার নিয়ম

ভোটার নাম্বার বের করার জন্য আপনাদের ভোটার স্লিপ এর দরকার পড়বে। এরপরে ভোটার স্লিপ নাম্বার দিয়ে ভোটার নাম্বার বের করার জন্য services.nidw.gov.bd ভোটার তথ্য পেজে গিয়ে স্লিপ নাম্বার এবং জন্মতারিখ প্রদান করতে হবে। সাবমিট বাটন দ্বারা আপনি ভোটার নাম্বার তথ্য দেখতে পাবেন।

একই নিয়মে যারা নতুন ভোটার নিবন্ধন হয়েছেন কিন্তু আইডি কার্ড হাতে পাননি তারাও ভোটার স্লিপ দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন উপরোক্ত নিয়ম অনুযায়ী। ভোটার স্লিপ নাম্বার এবং জন্মতারিখ , ক্যাপচার সাবমিট দেয়ার পরেআপনাদের যদি মোবাইল হয় তাহলে নিচে তথ্য দেখতে পাবেন আর যদি কম্পিউটার হয় তাহলে ডান পাশে  ভোটার তথ্য দেখতে পাবেন। ভোটার তথ্য পৃষ্ঠা ঠিক দেখতে নিচের ছবির মত হবে।  এখানে সব ইনফরমেশন দেয়া থাকবে যেমন আপনার ভোটার নম্বর,  এনআইডি নাম্বার ,ভোটার সিরিয়াল নাম্বার, ভোটার এলাকার তথ্য দেখতে পাবেন।

ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম

উপরোক্ত ছবির সবুজ গোল দাগ দেওয়া নাম্বারটা হল আপনার ভোটার নাম্বার। আর লাল দাগ দেয়াটা হল ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার।  উক্ত ভোটার নাম্বার দিয়ে আপনারা খুব সহজেই ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন।  প্রথমে এই ভোটার নম্বর টি সংগ্রহ করে রাখুন এবং আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বারটি সংগ্রহ করে রাখুন পরবর্তীতে অনলাইন কপি ডাউনলোড করার জন্য।

যাদের ভোটার আইডি কার্ড হারিয়ে গেছে কিন্তু ভোট দিতে পারতেছেন এর প্রধান কারণ হলো ভোটার লিস্টে আপনাদের ভোটার নাম্বার দেওয়া থাকে এবং আপনাদের সিরিয়াল নম্বর দেয়া থাকে। তো সেই ভোটার নাম্বার দিয়ে আপনারা আপনাদের আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন এবং আপনাদের ভোটার তথ্য দেখতে পারবেন।

ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম

ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করতে হলে আপনাদেরকে services.nidw.gov.bd এর ভোটার তথ্য ওয়েব পেইজে গিয়ে ভোটার লিস্টে থাকা ভোটার নাম্বার এবং আপনার জন্ম তারিখ প্রদান করতে হবে। এরপরে সাবমিট বাটনে ক্লিক করলে আপনার ভোটার আইডি কার্ড তথ্য দেখতে পাবেন।

ভোটার নাম্বারটি কোথায় পাবেন? ভোটার নাম্বার টি পাবেন আপনি আপনার নির্বাচনী এলাকার নির্বাচনের সময় নির্বাচনের প্রার্থীর কাছে ভোটার লিস্টে।  সেখান থেকে আপনি আপনার ভোটার নাম্বার টি সংগ্রহ করবেন। ভোটার নাম্বার টি দেখতে  নিচের ছবির মত হবে।

  • প্রথমে এই লিংকে ক্লিক করুন.
  • ভোটার তথ্য পেজে যাওয়ার পরে একটি পেজ দেখতে পাবেন সেখানে লেখা থাকবে  জাতীয় পরিচয় পত্র / ফর্ম নাম্বার. সেই ঘরে উপরের ফরম নাম্বারটি প্রদান করুন। 
  •  জন্ম তারিখের ঘরে আপনার জন্ম তারিখ প্রদান করুন
  •  ক্যাপচা পুরন করে সাবমিট করুন

আপনার যদি ভোটার নাম্বার জানা না থাকে অর্থাৎ ভোটার লিস্টে আপনার নাম না থাকে তাহলে আপনার হাতে থাকা ভোটার স্লিপ নাম্বার দিয়ে একই নিয়মে উক্ত ওয়েবসাইটে গিয়ে স্লিপ নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন। 

ভোটার আইডি কার্ড বের করার ওয়েবসাইট লিংক https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/voter-info

ভোটার স্লিপ দিয়ে ভোটার আইডি বের করার নিয়ম

ভোটার স্লিপ নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের  করার জন্য সরকারি ভোটার তথ্য ওয়েবসাইটে গিয়ে ভোটার স্লিপ নাম্বার এবং জন্মতারিখ সাথে ক্যাপচা পুরন করার পরে সাবমিট প্রদান করুন। প্রক্রিয়াটি সফল হলেই আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড বের করে ফেলতে পারবেন খুব সহজেই।

এই নিয়মটি উপরে একবার বলা হয়েছে, ভোটার নম্বর বের করার ক্ষেত্রে। তবুও আরেকবার বললাম যাতে আপনাদের বুঝতে সহজ হয়।

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করার জন্য উপরোক্ত নিয়ম অনুসারে আপনার ভোটার তথ্য চেক করবেন। চেক করার পরে আপনার ভোটার নাম্বার এবং আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার টি সংগ্রহ করে রাখবেন।  এরপরে আপনাকে উক্ত ওয়েবসাইটে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। অ্যাকাউন্ট তৈরি করার পরে সেখানে আপনাকে বিভিন্ন রকমের ভেরিফিকেশন প্রদান করতে হবে, পাসওয়ার্ড প্রদান করতে হবে। এবং আপনার ফেস ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করতে হবে।

ভোটার আইডি কার্ড চেক এবং ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া আমাদের একটি পোস্টে লেখা রয়েছে। আপনি সেখান থেকে যদি ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য কিভাবে রেজিস্ট্রেশন করবেন সেটি না দেখেন তাহলে দেখে আসুন। কারণ আপনি একাউন্ট রেজিস্টার না করতে পারলে কখনোই ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন না। আর ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করার জন্য উক্ত সাইটে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া আপনাকে সম্পন্ন করতে হবে।

এই স্টেপ টি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই এটি ফলো করুন নিচের লিংক থেকে।

 

  •  এই লিংকে ক্লিক ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি জন্য রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া দেখে আসুন।

সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া হওয়ার পরে আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন। তবে বলে রাখা ভাল  আপনার জন্ম যদি 2001 সালের  আগে হয় তাহলে আপনি ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি বের  করার জন্য আপনাকে ভোটার আইডি কার্ড হারানো বাবদ ফি প্রদান করতে হবে । এক্ষেত্রে ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্রের নাম্বার দিয়েই উক্ত  ভোটার তথ্য পেইজে গিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড তথ্য দেখতে পারবেন। আর যদি আপনার জন্ম তারিখ 2001 এর পরে হয় তাহলে যত বার খুসি ততবার আপনি ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন সম্পূর্ণ বিনামূল্যে।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি বের করা যায় কিনা

অনেকেই এরকম একটা প্রশ্ন করে থাকেন যে মোবাইল নাম্বার দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বের করা যায় কিনা। আসলে এই প্রশ্নটা সম্পুর্ণ ভুল মোবাইল নাম্বার দিয়ে কখনই ভোটার আইডি কার্ড বের করা সম্ভব নয়। আপনি  যখন ভোটার তথ্য হালনাগাদ করেন তখন আপনার কাছ থেকে একটি মোবাইল নাম্বার নেওয়া হয় যাতে পরবর্তীতে আপনার ভোটার তথ্য সংশোধন বা অন্যান্য কার্যক্রমের জন্য এই নাম্বার টি ব্যবহার করা হয়ে থাকে কিন্তু এই নাম্বারটি দিয়ে আপনি ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন না।

3 Comments
  1. Sahajuddin says

    Nid cad

  2. মোঃ আব্দুল হাবিব রোহান says

    চেক 14220250

    1. SHAFIQ says

      চেক করতে হলে এসএমএস এর মাধ্যমে করুন৷ বিস্তারিত জানতে এই পোস্ট পরুনমোবাইলে ভোটার আইডি চেক করুন ২ মিনিটে

Leave A Reply

Your email address will not be published.