মোবাইলে ভোটার আইডি চেক করুন ২ মিনিটে

0

বর্তমানে অনেকের কাছে কম্পিউটার না থাকায় মোবাইলে ভোটার আইডি চেক করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। এবং তারা নিজেরাই মোবাইল দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার প্রক্রিয়া খুঁজছেন। যদিও ভোটার আইডি কার্ড চেক করার জন্য যে ওয়েবসাইট চালু ছিল সেটি বন্ধ আছে তাই বিকল্প পদ্ধতিতে মোবাইলে ভোটার আইডি কার্ড চেক কিভাবে করবেন তা জানুন।


নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড কিভাবে দেখব? যারা ইতিমধ্যে ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ করেছেন তারা কীভাবে আপনার ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার এবং ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন থেকে দেখবেন এবং ডাউনলোড করবেন সেটি আজকে আমি আপনাদের জানাবো। খুব সহজেই মোবাইল দিয়ে ভোটার আইডি চেক এবং আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম 2022 জানতে পারবেন।

আপনার কাছে যদি ভোটার স্লিপ/ ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার, এবং আপনার জন্মতারিখ থাকে তাহলে আপনি খুব সহজেই মোবাইলে ভোটার আইডি চেক করতে পারবেন।

মোবাইলে ভোটার আইডি চেক করার জন্য যা দরকার পড়বে

  • একটি স্মার্টফোন
  • ইন্টারনেট কানেকশন
  • মোবাইলে ব্যালেন্স
  • এনআইডি নাম্বার অথবা
  • ভোটার স্লিপ
  • জন্ম তারিখ

মোবাইলে ভোটার আইডি চেক করার নিয়ম

যেহেতু আগেই বলেছি মোবাইলে ভোটার আইডি চেক করার জন্য আপনার কয়েকটি জিনিসের দরকার পড়বে উক্ত জিনিস নিয়ে আপনি দুই পদ্ধতিতে ভোটার আইডি চেক করতে পারবেন।

  • মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে ভোটার আইডি চেক
  • মোবাইলে অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার আইডি চেক

পূর্বে আমরা ভোটার আইডি কার্ড চেক করার জন্য নির্বাচন কমিশনের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট services.nidw.gov.bd তে গিয়ে ভোটার তথ্য পেইজে আমাদের ভোটার স্লিপ নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে অনুসন্ধান করতাম। কিন্তু 2022 সালের শেষের দিকে নির্বাচন কমিশন তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ভোটার তথ্য দেখার সার্ভিসটি বন্ধ করে দিয়েছে।

তাই পরবর্তীতে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার অফিশিয়াল সার্ভিসটি চালু না করা পর্যন্ত আমরা বিকল্প পদ্ধতিতে ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারব। তবে সেটি আমরা নির্বাচন কমিশনের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে দিয়ে ভোটার আইডি চেক করতে পারবোনা।

তো চলুন আমরা জেনে নিই বিকল্প পদ্ধতিতে ভোটার আইডি চেক করার প্রক্রিয়া। এই প্রকৃতির শুধু তারাই অবলম্বন করবেন যারা ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন করেছেন এবং যাদের বয়স ১৮ পার হয়েছে। যাদের 18 বছর পার হয়নি তাদের ভোটার তথ্য সার্ভারে পাওয়া যাবে না।

পদ্ধতি ১ঃ মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে ভোটার আইডি চেক

এখন পর্যন্ত ভোটার আইডি কার্ড না পেয়ে থাকলে মোবাইলে SMS এর মাধ্যমে সেটি চেক করতে পারবেন। প্রথমে আপনার মোবাইলের মেসেজ অপশন থেকে টাইপ করুন SC<space>F<space>নিবন্ধন স্লিপের ৮ সংখ্যার নাম্বার<space>D<space>৪ সংখ্যার জন্ম সাল ডাস (–)২ সংখার জন্ম তারিখ লিখে লিখে পাঠিয়ে দিন 105 নাম্বারে।

উদাহরনঃ SC F 12345678 D 2001-25 Send to 105 Number

24/48 ঘন্টার মধ্যে আপনার ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার এবং আপনার নামসহ ভোটার তথ্য পেয়ে যাবেন।

পদ্ধতি ২ঃ মোবাইলে অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার আইডি চেক

এ পদ্ধতিতে মোবাইলে আপনার ছবিসহ ভোটার আইডি কার্ড যাচাই করতে পারবেন। এটি করার জন্য পূর্বে এসএমএস এর মাধ্যমে যাচাই করা ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার টি সংগ্রহ করবেন এবং এটির দরকার পড়বে মোবাইলে অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড চেক করার জন্য।

অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড চেক করা নতুন সার্ভার টি হল ভূমি মন্ত্রণালয় কর। এই ওয়েবসাইটের নাগরিক রেজিস্টার কর্নার এ গিয়ে আপনার এনআইডি নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে ভোটার আইডি চেক করতে পারবেন। সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি নিচে দেখানো হলো।

প্রথমে ভিজিট করুন ভূমি উন্নয়ন কর এর ওয়েবসাইট ldtax.gov.bd অথবা ক্লিক করুন এই লিঙ্কে
নিচের মত একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন।

মোবাইলে ভোটার আইডি চেক

  • এখান থেকে নাগরিক নিবন্ধন অপশন টি বাছাই করে নিবেন
  • প্রথম ঘরে আপনার যে কোন একটি মোবাইল নাম্বার প্রদান করবেন
  • এনআইডি নাম্বার এর ঘরে আপনার এসএমএসের মাধ্যমে সংগ্রহকৃত এনআইডি নাম্বারটি দিবেন
  • এরপরে আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার সিলেক্ট করবেন
  • সবকিছু হয়ে গেলে “ পরবর্তী “ নামক বাটনটিতে ক্লিক করলে নিচের মত একটি ইন্টারফেস যে আপনার ভোটার আইডি কার্ড ইনফর্মেশন দেখতে পাবেন।

মোবাইলে ভোটার আইডি চেক

ভোটার স্লিপ হারিয়ে গেলে করণীয়

আমরা জানি যে মোবাইলে ভোটার আইডি চেক করার জন্য প্রথমত যে জিনিসটি দরকার পড়ে সেটি হল ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার। কিন্তু যারা নতুন ভোটার নিবন্ধন হয়েছেন তাদের অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার জানা থাকে না। আরে ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার সংগ্রহ করার জন্য ভোটার স্লিপ নাম্বার দরকার পড়ে। আর ভোটার স্লিপ নাম্বার দিয়ে ভোটার স্লিপ কাটা অংশে উল্লেখ করা থাকে।

যদি কোন কারণে আপনার ভোটার স্লিপ হারিয়ে যায় সেক্ষেত্রে আপনি যেই এলাকার যত নম্বর ওয়ার্ডে বসবাস করেন উক্ত ওয়ার্ডের ভোটার লিস্ট নাম্বারটি আপনার সংগ্রহ করতে হবে এটি করার জন্য উক্ত এলাকার মেম্বার বা কাউন্সিলর এর কাছে যাবেন। সেখান থেকে ভোটার নাম্বার টি সংগ্রহ করবেন। বক্তব্যটা নাম্বার দিয়ে আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড পুনরায় উত্তোলন করতে পারবেন উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে।

এছাড়াও আপনি উক্ত ভোটার নাম্বার দিয়ে অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ডটি সংগ্রহ করতে পারবেন। ভোটার নাম্বার দিয়ে আইডি কার্ড বের করার নিয়ম সম্পর্কে আরও জানুন এখানে ক্লিক করে

অনলাইন থেকে কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড  অনলাইন কপি সংগ্রহ করবেন?

আপনি যদি এখন পর্যন্ত আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র ভোটার আইডি কার্ড হাতে না পেয়ে থাকেন তাহলে আপনার হাতে থাকা ভোটার স্লিপ নিবন্ধন স্লিপ নাম্বার দিয়ে খুব সহজেই নির্বাচন কমিশনের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

নির্বাচন কমিশন বাংলাদেশ ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য প্রথমত আপনাকে কয়েকটি পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। যেমন ওয়েবসাইটে আপনার এনআইডি কার্ড নাম্বার দিয়ে একটি একাউন্ট রেজিস্টার করে নিতে হবে। এবং আপনার পরিচয় ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করতে হবে। সম্পূর্ণভাবে একাউন্ট করার মাধ্যমে প্রোফাইলে গিয়ে আপনার ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করবেন এই নিয়ে বিস্তারিত আমাদের একটি পোষ্ট রয়েছে আরও জানতে এখানে ক্লিক করুন

হোম পেইজে যান Home Page
ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে আরো পোস্ট ভোটার আইডি কার্ড
এই ক্যাটাগরির আরও পোস্ট E-Service

ভোটার আইডি কার্ড সংক্রান্ত আরও পোস্ট

Leave A Reply

Your email address will not be published.