জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম 2022

1

আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ যদি কোন কারনে কোন তথ্য ভুল উল্লেখিত হয় যেমন নাম, জন্ম তারিখ পিতা বা মাতার নাম বা ঠিকানা এটি খুবই দ্রুত সংশোধন করা উচিত।  কারণ জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন না করলে আমাদের অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে।  জন্ম নিবন্ধন কাগজ যদি ভুল থাকে তাহলে ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম আজকে খুব সহজেই আপনাদের  বলবো।

জন্ম নিবন্ধন সনদ আমাদের প্রত্যেকটি মানুষের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট।  আমরা যখন ইউনিয়ন বা  পৌরসভার তথ্যকেন্দ্র থেকে আমাদের জন্ম নিবন্ধন  সনদ তৈরি করে থাকি তখনই একটা কারণে আমাদের অনেক সময় জন্ম  নিবন্ধন আবেদন  ভুল তথ্য উল্লেখিত হয়।  পরবর্তীতে সেই ভুল তথ্য অনেকটা সময় বিপদ বয়ে আনতে পারে আমাদের ভবিষ্যতের জন্য।  আর এই ভুলগুলো খুব সহজে অনলাইন থেকে সংশোধন করা সম্ভব। আজকের আর্টিকেলে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম এবং প্রক্রিয়া জানতে পারবেন এবং ঘরে বসে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করতে পারবেন।

 

জন্ম নিবন্ধনে পিতা বা মাতার নাম সংশোধন করার ক্ষেত্রে জরুরি

জন্ম নিবন্ধনে পিতা/ মাতার নাম সংশোধন করার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই আপনার পিতা বা মাতার জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করে নিতে হবে।  সেখানে আপনার পিতা বা মাতার জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেটে  তাদের সঠিক নাম উল্লেখ করতে হবে। অর্থাৎ তাদের নাম তাদের নিজস্ব জন্ম সনদ থেকে সংশোধন করতে হবে। এরপরে তাদের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার সংগ্রহ করে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার সময় সেই নাম্বার উল্লেখ করতে হবে। পরবর্তীতে আপনার জন্ম নিবন্ধন পুনর্মুদ্রণ করলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ এসেই সংশোধিত নাম দেখতে পাবেন।  এক্ষেত্রে আপনাকে আপনার জন্ম নিবন্ধন কাগজে আলাদা করে পিতা বা মাতার নাম সংশোধন করতে হবে না। 

আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর যদি না থাকে অর্থাৎ অনলাইন না থাকে এবং আপনার জন্ম তারিখ ০১/০১/২০০১ এর আগে হয়, তাহলে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন করার সময় আপনার পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার পিতা/মাতা মৃত হলেও তাদের মৃত্যুর কোন প্রমাণপত্র দাখিল করতে হবে না।

যদি আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না থাকে এবং আপনার পিতা/মাতা মৃত হয় এবং আপনার জন্ম তারিখ ০১/০১/২০০১ এর পরে হয়, তবে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন করার সময় আপনার পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার পিতা/মাতার মৃত্যুর প্রমাণপত্র দাখিল করতে হবে। 

আর যদি আপনার পিতা মাতা জীবিত থাকেন এবং আপনার জন্ম তারিখ ০১/০১/২০০১ এর পরে হয়। তাহলে আপনার পিতা-মাতার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন করে নিবেন এরপরে তাদের জন্ম নিবন্ধন নম্বর সংগ্রহ করে নিবেন।

গুরুত্বপূর্ণ

 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন- জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন থেকেই করতে পারবেন। এজন্য পুর্বে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন থাকতে হবে। এরপরে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার জন্য অনলাইন থেকে সরকারি জন্ম নিবন্ধন ওয়েবসাইট bdris.gov.bd/br/correction ওয়েব পেজে প্রবেশ করতে হবে। এরপরে নিচের মত একটি ওয়েব পেজ দেখতে পাবেন, এখানে আপনার ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নম্বর এবং আপনার জন্ম তারিখ টাইপ করে অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করলে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন তথ্য দেখতে পারবেন।

প্রবেশ করুন এই লিঙ্কে https://bdris.gov.bd/br/correction

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ১

অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করার পরে আর একটি ট্যাব ওপেন হয়ে যাবে এখানে উক্ত আবেদনকারী ব্যক্তির জন্ম নিবন্ধন তথ্য দেখতে পাবেন। 

  • এরপরের তথ্য সঠিক থাকলে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে চাইলে নীল কালারের টিক মার্ক দেওয়া “নির্বাচন করুন” বাটনে ক্লিক করুন। 
  • এরপরে কনফার্ম বাটন প্রেস করুন।
  • এরপর পরবর্তী একটি ওয়েব পেজ আপনাকে নিয়ে যাওয়া হবে, এবং  যেটি দেখতে হবে নিচের ছবিটির মত। এখানে আপনার জন্ম নিবন্ধন আবেদন এর অফিসের ঠিকানা প্রদান করতে হবে। যেমনঃ

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

  1. দেশ= বাংলাদেশ
  2. বিভাগ= আপনার বিভাগ
  3. জেলা= আপনার জেলা
  4. উপজেলা= আপনার  উপজেলা
  5. পৌরসভা ইউনিয়ন=  আপনি যে লোকেশনে থাকেন সেই এলাকার নাম দিবেন।

সবকিছু দেওয়া থাকলে এবার ‘পরবর্তী” বাটনে প্রেস করবেন। এরপরে আপনাকে একটি নতুন একটি পেজ হবে এটিই হবে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন এর পেইজ।  এখান থেকে আপনার চাহিত তথ্যটি সংশোধন করার সুযোগ পাবেন। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ২

এই পেজ থেকে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন এর আপনার সংশোধন করার কারণটি  বা বিষয়টি বাছাই করতে হবে এজন্য নির্বাচন মেনু থেকে আপনার  অপশনটি বাছাই করে নিবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ৩

সংশোধনের বিষয়ে নির্বাচন করার পরে  ডান পাশে আরেকটি অপশন চালু হবে সেখানে আপনার চাহিত সংশোধিত তথ্য প্রদান করবেন,  যেমন  জন্ম নিবন্ধন নাম সংশোধন করতে চাইলে সংশোধিত নাম টাইপ করবেন অথবা পিতা মাতার নাম সংশোধন করতে চাইলে সেটা উল্লেখ করবেন। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ৪

সংশোধিত তথ্য উল্লেখ করার পরে ডান পাশে আরও একটি অপশন দেখতে পাবেন সেখানে সংশোধনের কারণ উল্লেখ করবেন।  যেমনঃ  ভুল লিপিবদ্ধকরণ 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ৫

আরও কোন তথ্য সংশোধন করতে চাইলে সবুজ কালারের “ আরো তথ্য সংযোজন করুন’  বাটনে ক্লিক করতে হবে এরপরে উপরের নিয়ম অনুযায়ী প্রথমে বিষয়,  পরের বিষয় অনুযায়ী সংশোধিত তথ্য, এবং  সংশোধনের কারণ উল্লেখ করে দিতে হবে। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ৬

উপরের সব তথ্য দেওয়া  হয়ে গেলে নিচের মত আরেকটি ছবি দেখতে পাবেন।  জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদনকারীর জন্মস্থান এর ঠিকানা এবং বর্তমান ঠিকানা প্রদান করতে হবে বাধ্যতামূলক।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ৭

ঠিকানা দেওয়ার পরে আবেদনকারীর তথ্য দিতে  হবে ।  অর্থাৎ যিনি আবেদন করছেন তার তথ্য দিতে হবে। আবেদনকারী ব্যক্তির বয়স যদি 18 বছরের উর্ধ্বে হয় তাহলে সে নিজেই আবেদন করতে পারবে।  আর যদি 18 বছরের নিচে হয় তাহলে সে ক্ষেত্রে তার পিতা-মাতা ভাই-বোন আত্মীয়-স্বজন আবেদন করতে পারবে। তো আবেদনকারীর সাথে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন কৃত ব্যক্তির সম্পর্ক দিতে হবে।  যেমন আপনি যার হয়ে আবেদন করে দিচ্ছেন তার সাথে আপনার সম্পর্ক হচ্ছে লেট করে দিতে হবে।  আর যদি আপনি নিজেই হোন তাহলে  নিজ  সিলেক্ট করে দিবেন এবং অন্যান্য হলে অন্যান্য করে দিবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ৮

পরের ঘরে আবেদনকৃত ব্যক্তির মোবাইল নাম্বারটি দিয়ে দিতে হবে। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ৯

এর পরের ঘরে সবুজ বাটনের সংযোজন ডকুমেন্ট অপশন থেকে আবেদনকৃত ব্যক্তির ভোটার আইডি কার্ড এর প্রিন্ট কপি আপলোড করতে হবে । অর্থাৎ সংশোধনের বিষয় থেকে আপনি যে  অপশনটি বাছাই করেছেন যেমন পিতার নাম সংশোধন বা মাতার নাম সংশোধন এখান থেকে যার যে অপশনটি সিলেক্ট করেছেন সেই ব্যক্তির একটি ডকুমেন্ট আপলোড দিতে হবে।  ডকুমেন্টটি যেকোনো ধরনের হতে পারে যেমন জন্ম নিবন্ধন বা ভোটার আইডি কার্ড সেক্ষেত্রে আপলোড এর সময় ডকুমেন্টের ধরন বাছাই করে নিবেন অপশন থেকে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ১০

পেমেন্ট অপশন খুজে পাবেন।  পেমেন্ট করার দুটি অপশন থাকবে। 1.Cash 2. Chalan আপনি যেভাবে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন এর ফি প্রদান করতে চাচ্ছেন সেই অপশন টি বাছাই করে নিতে হবে। 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ধাপ ১১

আপনার দেওয়া সম্পূর্ণ তথ্য গুলো সঠিক ভাবে উপস্থাপিত হলে বা যাচাই বাছাই করা হলে সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে।  সাবমিট বাটনে ক্লিক করার পরে আপনার জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেট সংশোধন করার জন্য আবেদন হয়ে যাবে । 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন শেষ ধাপ ১২ 

এর পরবর্তী পেইজে আপনার আবেদন নম্বর দেয়া হবে এবং আপনার আবেদনপত্রটি প্রিন্ট করে নিতে হবে।  আবেদনপত্র পূরণ করে নেওয়ার পরবর্তী 15 দিনের মধ্যে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সংশ্লিষ্ট নিবন্ধকের নিকট দাখিল করতে হবে।

এখন অনেকের মনেই আবার প্রশ্ন আসতে পারে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগে?

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কত টাকা লাগে

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার ক্ষেত্রে যদি আপনি আপনার জন্ম তারিখ সংশোধন করতে চান তাহলে সরকারি বিধি মোতাবেক ১০০ টাকা কি প্রদান করতে হবে।  আর যদি আপনি অন্যান্য তথ্য যেমন বাবা-মায়ের নাম পরিবর্তন করতে চান তাহলে ৫০ টাকা ফি প্রদান করতে হবে।

অনেক অনেক জায়গায় এর থেকেও বেশি অনেক টাকা নেওয়া হয় জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার ক্ষেত্রে। আপনার কাছ থেকে যদি অতিরিক্ত চার্জ নেওয়া হয় তাহলে নিকটস্থ থানায় অভিযোগ জানাতে পারেন। 

1 Comment
  1. খুব সুন্দর পোস্ট।

Leave A Reply

Your email address will not be published.