টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় ( সেরা ৮ টি )

0

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় যদি জানতে চান তাহলে পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়তে হবে l  আপনি যদি জানতে চান কিভাবে টিকটকে ভাইরাল হওয়া যায় তাহলে নিশ্চয়ই আপনি একজন টিকটক শর্ট ভিডিও ক্রিয়েটর।  যদিও টিকটক ভাইরাল সম্পূর্ণ টিকটকের অ্যালগোরিদম এর উপর কাজ করে তাই যে কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে টিক টক এ ভাইরাল হতে পারেনা। তবে আজকে আমরা কিছু মেথড আপনাদেরকে শিখিয়ে দেবো যেভাবে আপনারা টিক টক ভিডিও তৈরি করলে আপনাদের ভাইরাল হওয়ার চান্স অনেকাংশে বেড়ে যাবে।

Tik Tok রেফার সমস্যা সমাধান

বর্তমান সময়ে বহুল জনপ্রিয় শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম হল টিক টক । টিক টক ব্যবহার করি নাই বা টিকটকের নাম শুনি নাই এমন বলতে পারবে,  সেরকম লোক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর বিষয় । টিক টক অ্যাপ টি হল মূলত একটি সোশ্যাল মিডিয়া যার মাধ্যমে আমরা একটা তথ্য অনেকের কাছে খুব সহজে পৌঁছে দিতে পারি । বর্তমানে টিক টক বিনোদনের জন্য বেশি ব্যবহৃত হয় । আমরা অনেকেই আছি যারা টিক টক এ ভিডিও তৈরি করি । কিন্তু আমাদের ভিডিওতে ভিউজ আসেনা আমাদের ভিডিও গুলো ভাইরাল হয় না । এজন্য আমাদের টিকটকের প্রতি আকর্ষণ কমে যাচ্ছে আমরা ভিডিও  করতে ইচ্ছে পোষণ করছি না ।  আমাদের ভিডিওগুলি ভাইরাল না হওয়ার কিছু কারণ আছে । আমরা আজকে সে কারণগুলো সম্পর্কে আলোচনা করব । যে নিয়মকানুন গুলো মেনে টিক টক এ ভিডিও আপলোড দিলে আমাদের ভিডিও গুলো ভাইরাল হবে  । আমাদের ভিডিও গুলো  তে বেশি পরিমাণে ভিউজ আসবে যত বেশী ভিউজ আসবে  ততো ফলোয়ার  এবং লাইক বৃদ্ধি পাবে । তো চলুন জেনে নেয়া যাক টিকটকে ভিডিও ভাইরাল করার উপায় ।

টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায়

আমরা যারা টিকটকে ভিডিও তৈরি করি তাদের সবারই একটা উদ্দেশ্য থাকে । সবার উদ্দেশ্য থাকে যে আমরা টিক টকে ভাইরাল হব । নিজেদের টিকটকে প্রচার করার জন্য প্রথমে আমাদের আমাদের টিকটক ভিডিওগুলি ভাইরাল করতে হবে । কিভাবে টিকটক ভিডিও ভাইরাল করতে হয় সেই উপায়গুলো না জানার ফলে আমাদের টিকটক ভিডিও গুলি ভাইরাল হয় না । আমাদের এই লেখাটির মূল উদ্দেশ্য হলো কিভাবে টিকটক এ ভিডিও ভাইরাল করা যায় । আমরা টিক টক এ ভিডিও আপলোড দিতে গিয়ে সাধারণত ভুল গুলো বেশি করি যার কারণে আমাদের টিক টক এ ভিডিও ভাইরাল হয় না । টিক টক এ ভিডিও ভাইরাল করার জন্য প্রথমে আমাদের ভিডিওগুলো ফর ইউ পেজে নিতে হবে । আমরা টিক টক অ্যাপ ওপেন করলে দেখতে পাই ফর ইউ পেজে নতুন নতুন ভিডিও শো করে । ফর ইউ  পেজে যে ভিডিওগুলো শো করে ওই ভিডিওগুলো ভাইরাল হয় । আমরা যদি কিছু নিয়মকানুন মেনে ভিডিও আপলোড করি তাহলে আমাদের ভিডিও গুলো ফর ইউ পেজে শো করবে এবং আমাদের ভিডিও গুলো ভাইরাল হবে । তো চলুন জেনে নেয়া যাক কি কি কাজ করলে আমাদের ভিডিও গুলো টিকটকে ভাইরাল হবে । এছাড়া একটি কাজ অবশহই করুন সবসময় Tik Tok এর লেটেস্ট ভার্সন ব্যবহার করুন।  টিক টক অ্যাপ ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

৮ + টিকটকে ভাইরাল হওয়ার প্রক্রিয়া

ট্রেন্ডিং সাউন্ড ব্যবহার করা

টিক টক এ ভিডিও ভাইরাল  করার এক অন্যতম সহজ উপায় হল ট্রেন্ডিং সাউন্ড গুলোর ব্যবহার করা। এর কারণে যেটা হয় যখন কোন মিউজিক টিকটক For You তে ট্রেন্ডিং এ থাকে তখন সেই সাউন্ড গুলো  দিয়ে তৈরিকৃত ভিডিওগুলো টিকটক অ্যালগরিদম ফর ইউ পেইজে নিয়ে যায়। এটা একটা বড় সুযোগ টিক্তক এ ভাইরাল হওয়া।  সব সময় চেষ্টা করবেন ট্রেন্ডিং সব সাউন্ড দিয়ে ভিডিও তৈরি করার। তবে ট্রেন্ডিং সাউন্ড এর ব্যবহার  করার পাশাপাশি আপনাকে আরো কয়েকটি কাজ করতে হবে তা নিচে আলোচনা করা হবে।

ট্রেন্ডিং ভিডিও মেকিং

ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ক্ষেত্রে ট্রেন্ডিং ভিডিও মেকিং এর বিকল্প নেই ।  যে সময় যেটা ভাইরাল টপিক থাকে ওই সময়  ওই টপিক টা নিয়ে ভিডিও মেকিং করাকে ট্রেন্ডিং ভিডিও মেকিং বলে । মানুষ ট্রেন্ডিং ভিডিও দেখতে খুব পছন্দ করে । ট্রেন্ডিং ভিডিও গুলো সবথেকে বেশি ভাইরাল হয় । তাই ভিডিও ভাইরাল এর ক্ষেত্রে ট্রেন্ডিং ভিডিও মেকিং এর গুরুত্ব অপরিসীম ।  আমরা যদি আমাদের টিক টক ভিডিও গুলো কে ভাইরাল করতে চাই । তাহলে অবশ্যই আমাদের ট্রেন্ডিং ভিডিও মেকিং করতে হবে ।

এখানে ট্রেনিং সাউন্ড এবং ট্রেনিং ভিডিও মেকিং দুইটা আলাদা করে  বুঝিয়েছি, কারণ ট্রেনিং সাউন্ড ভিডিও সবসময় একরকম অভিনয় থাকে না। একেক  মানুষ ট্রেন্ডিং সাউন্ড গুলোতে একেক টাইপ অভিনয় গুলো দিয়ে ভিডিও তৈরি করে।  তবে এমন কিছু ট্রেন্ডিং ভিডিও রয়েছে যার সাথে আপনাদের মুখের ভঙ্গি এবং আচার-আচরণ একরকম রাখতে হবে।  যেমন কয়েকদিন আগে ভাইরাল হয়েছিল তাহেরি চা ঢেলে দেই ডায়লগ টি।  প্রায় অনেক মানুষ তাহেরী অঙ্গভঙ্গি দিয়ে ভিডিও তৈরি করেছিল।

সেলিব্রিটিদের সাথে ডুয়েট করা

টিকটকের বর্তমানে যাদের ভিডিও ভাইরাল বেশি হয় অথবা যাদের ভেরিফাইড প্রোফাইল রয়েছে তাদের কে দেখবেন নিত্য নতুন ভিডিও আপলোড করতে।  প্রায় সময় সেলিব্রিটিদের ভিডিও টিক টক এ ভাইরাল হয়।  আর  তারা যেই সাউন্ড গুলো ব্যবহার করে সবগুলোই ট্রেন্ডিং ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক। তাদের ব্যবহার কিন্তু ভিডিও সাউন্ড গুলোর সাথে আপনি ভোট করতে পারেন অথবা তাদের ভিডিওগুলো সাথে আপনি ডেট করতে পারেন এতে করে সেই সেলিব্রিটিদের  ফ্যানদের কাছে আপনার ভিডিও পৌঁছে যেতে পারে।  এতে করে আরেকটি সুযোগ তৈরী হতে পারে টিক টকে ভাইরাল হওয়ার।

ভিডিও নিশ বাছাই করুন এবং ইউনিক ভিডিও আপলোড করুন

এখানে নিস বলতে আমি একটা ক্যাটাগরী কি বুঝিয়েছি।  আপনি যেকোন একটা ক্যাটাগরী নিয়ে ভিডিও তৈরি করুন।  যেমন বর্তমানে শায়ারি জাতীয় ভিডিওগুলো টিকটকে টপ ট্রেন্ডিং করে । আপনার কন্টেন্ট এর দিকে নজর দিন। যেহেতু আপনি টিক টকে মানুষকে বিনোদন দিতে চাচ্ছেন তাহলে মানুষ বিনোদিত হয় এমন সব ভিডিও তৈরি করুন। কখনো মানুষের ভিডিও বা মানুষের আইডি এক কপি করা থেকে বিরত থাকুন।  সবসময় আলাদা ভাইব্রেভ  নিয়ে ভিডিও তৈরি করুন। যাতে টিকটক ব্যবহারকারীদের কাছে মনে হয় এই ভিডিওটি তারা টিক্তক এ আগে কখনো দেখিনি কিন্তু এই ভিডিওটি তাদের কাছে ভালো লেগেছে।  এতে আপনার ভিডিও ডুয়েট কারীর সংখ্যা বেড়ে যাবে এবং আপনার ব্যবহার করা মিউজিকের ব্যবহারকারীও বেড়ে যাবে এতে করে আপনার ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার চান্স অনেক বেশি থাকে।

ক্লিয়ার ভিডিও আপলোড করা

ভিডিও ভাইরাল না হওয়ার সব থেকে বড় কারণ হল এটা । যদি ক্লিয়ার ভিডিও আপলোড না করা হয় তাহলে মানুষ আপনার ভিডিওগুলো দেখবে না এমনকি টিকটক থেকে আপনার ভিডিওর রিচ বন্ধ করে দেবে । যদি আপনার ভিডিওর কোয়ালিটি ক্লিয়ার না হয় তাহলে মানুষ আপনার ভিডিওগুলো দেখবে না এতে আপনার ভিডিও ভাইরাল না হওয়ার অনেক  সম্ভাবনা থাকে । তাই সবসময় টিকটক এ ক্লিয়ার ভিডিও আপলোড করার চেষ্টা করতে হবে ।

টিকটক ভিডিও কত সময়ের মধ্যে হতে হবে

আমরা অনেকেই জানিনা যে আমাদের ভিডিও গুলো কত সময় হলে ভাইরাল হবার সম্ভাবনা থাকে । আপনার একটা ভিডিও আপলোড করার পরে টিকটক অ্যালগরিদম ওই ভিডিওটা কে  ফর ইউ পেজ এ  সাজেস্ট করে । যদি ইউজাররা আপনার ভিডিওটি এইট্টি পার্সেন্ট দেখে তাহলে আপনার ভিডিওটির রিস টিকটক অটোমেটিক বাড়িয়ে দেয় ।  এতে আরো অনেক নতুন নতুন ইউজারদের হোমপেজে যায় ভিডিওটি ।  এবং ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে । টিকটকে মূলত মানুষ  শর্ট ভিডিও দেখতে পছন্দ করে । টিক টকে  যদি লং ভিডিও আপলোড করা হয় তাহলে মানুষ সম্পূর্ণ ভিডিওটি দেখে না । তাই টিকটকে সব সময়  শর্ট ভিডিও  আপলোড করতে হবে । টিকটক ভিডিওর ডিউরেশন 30 সেকেন্ড এরমধ্যে থাকলে সব থেকে ভালো হয় ।

রেগুলার ভিডিও  আপলোড

আমরা সকলে  প্রায় এই ভুলটা বেশি করে থাকি আমরা টিক টক এ রেগুলার ভিডিও আপলোড করি না  । রেগুলার ভিডিও আপলোড না করার কারণে আমাদের ভিডিও গুলো ভাইরাল হয় না ।  রেগুলার ভিডিও আপলোড বলতে বুঝিয়েছে আমরা যদি প্রত্যেকদিন একটা করে ভিডিও আপলোড করি তাহলে সব সময় আমাদের এইভাবে একটা করে ভিডিও আপলোড করতে হবে । আপনারা যে ভুলটা করি একটা ভিডিও আপলোড করে দুই তিন দিন পর আবার একটা ভিডিও আপলোড করি । এর কারণে আমাদের ভিডিও গুলো ভাইরাল হবার সম্ভাবনা থাকেনা ।  আমাদের চেষ্টা করতে হবে রেগুলার ভিডিও আপলোড করা । দৈনিক যদি দুই থেকে তিনটা ভিডিও আপলোড করা যায় তাহলে আমাদের ভিডিও গুলো ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে । 

টাইটেল এবং হ্যাশট্যাগ ব্যবহার

টিকটকে  ভিডিও আপলোডের আগে অবশ্যই আমাদের খেয়াল করতে হবে আমাদের টাইটেল ঠিক আছে কিনা । টাইটেলে অবশ্যই ভাইরাল হ্যাশট্যাগ  যেমন #For you , #Bd_Tiktok ইত্যাদি এই জাতীয় ভাইরাল হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করতে হবে ।  এবং আপনি যে টপিকের ভিডিও আপলোড করেন সেই টপিকের হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করতে হবে । এবং টাইটেলে   ট্রেন্ডিং  হ্যাশট্যাগ  ব্যবহার করবেন । টাইটেলে  হ্যাশট্যাগ  ব্যবহারের ফলে ভিডিও ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটা বেড়ে যায় ।

টিক টক এ ভিডিও আপলোড এর ক্ষেত্রে যদি উপরের নিয়ম গুলো মানেন তাহলে আশা করছি আপনার টিকটক ভিডিও গুলো খুব দ্রুত ভাইরাল হবে । তো টিকটকে ভাইরাল হওয়ার উপায় নিয়ে আর রইলো না কোনো বাধা ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.