ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো । ফ্রিল্যান্সিং শেখার উপায় ২০২৩

7

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো ২০২৩ ? বর্তমানে সারা পৃথিবীতে ফ্রিল্যান্সিং শব্দটা বেশ পরিচিত। অধিকাংশ লোকের আয়ের এক বিশাল উৎস ফ্রিল্যান্সিং। তাই এই সুযোগে অনেকেই জানতে চাচ্ছেন ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শেখা যায়। আসলে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হলে আপনাকে বেশ কয়েকটি বিষয় জানতে হবে। আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের ফ্রিল্যান্সিং শেখার বিষয়ে কয়েকটি টিপস দেয়ার চেষ্টা করবো

ফ্রিল্যান্সিং কি?

ফ্রিল্যান্সিং মূলত ইংরেজি শব্দ যার বাংলা শব্দ মুক্তপেশা উইকিপিডিয়া অনুসারে ফ্রিল্যান্সিং হলো যে কোনো নির্দিষ্ট কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান অধিনে না থেকে মুক্তভাবে কাজ করা। আর এসব কাজ যারা করে থাকেন তাদের কে বলা হয় ফ্রিল্যান্সার।

কিন্তু অধিকাংশ মানুষজন ফ্রিল্যান্সিং মানে অনলাইনে টাকা উপার্জন বুঝে থাকে। এটি অনলাইন বা অফলাইনে যেকোনো কাজ হতে পারে আর ডিজিটাল বিশ্বের বেশিরভাগ  কাজ অনলাইনে ইন্টারনেটের মাধ্যমে সম্পন্ন হয়ে থাকে যার কারণে ইন্টারনেটের সাথে ফ্রিল্যান্সিং শব্দটা বেশ জনপ্রিয়। যারা ফ্রিল্যান্সার আছেন তারা একটা নির্দিষ্ট অর্থের বিনিময়ে একটি নির্দিষ্ট ব্যক্তির কাজ সম্পন্ন করে থাকেন তার নিজস্ব দক্ষতা দিয়ে। এটাই মূলত ফ্রিল্যান্সিং। আর বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং ইন্টারনেট ভিত্তিক হওয়ায় এ পেশার মাধ্যমে দেশি-বিদেশি হাজারো ক্লায়েন্টের সাথে পরিচিত হওয়া যায়।

আপনি যদি একজন পরিপূর্ণ দক্ষ ফ্রিলান্সার হয়ে থাকেন তাহলে আপনি প্রতি মাসে লাখ টাকার বা $1000-1500 এর উপর ইনকাম করতে পারবেন যা একটি সরকারি বা বেসরকারি চাকরির বেতন এর থেকে বেশি হতে পারে। দক্ষ ফ্রিল্যান্সার হওয়ার জন্য আপনাকে প্রচুর কাজের দক্ষতা থাকতে হবে এবং পরিপূর্ণভাবে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো

ফ্রিল্যান্সিং শেখাটা কোন অমূলক বিষয় না। ফ্রিল্যান্সিং যে কেউ শিখতে পারে তবে সেক্ষেত্রে ন্যূনতম বেশ কিছুটা ধারণা থাকা অবশ্যক। যেহেতু আপনি ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবোএই বিষয়টি নিয়ে গুগলের সার্চ করেছেন সেহেতু বলা চলে এ ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য এটি একটি মাধ্যম। ইন্টারনেট জগতে নাই বললে এমন জিনিসের সংখ্যা খুবই কম। প্রত্যেক ওয়েবসাইট থেকে ব্লগাররা বলে থাকে ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য আপনি অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগ সাইট বা ইউটিউব থেকে ধারণা নিতে পারেন।  কিন্তু অধিকাংশ ব্লগারেরা এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে না আসলে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং শেখা যায়।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করার আগে আপনাকে জানতে হবে ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে। ফ্রিল্যান্সিং টা আসলে কি? আর ফ্রিলান্সিং বিষয়ে যারা নতুন তাদের সবারই প্রশ্ন, ফ্রিল্যান্সিং কোথা থেকে শিখব?কিভাবে শিখবো? নতুন ফ্রিল্যান্সিং উদ্যোক্তারা করে থাকেন।

 

তাই যারা ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাচ্ছেন তারা অযথা সময় নষ্ট না করে ফ্রিল্যান্সিং করে সফল হয়েছে এমন কোন ব্যক্তির থেকে শেখার চেষ্টা করুন,  এতে আপনি পরিপূর্ন ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন ।

নামিদামি প্রত্যেক ফ্রিল্যান্সারদের ইউটিউব চ্যানেল থাকে সেখানে তারা ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে বিস্তারিত ভিডিও তৈরি করে থাকেন। আপনি সেখান থেকে ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ে ধারণা নিতে পারেন। সেখান থেকে ধারণা নিয়ে কাজ করতে পারেন, তবে এইটুকু ধারণা ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য যথেষ্ট নয়। আপনাকে কাজ শিখতে হলে ধারণা নেয়ার পাশাপাশি নিজে নিজেকে কাজ করে যেতে হবে।

আজকাল অনেকেই প্রচুর টাকা খরছা করে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স কিনছেন, হাজার হাজার ডলার উপার্জনের আশায়। আসলেই কি ফ্রিল্যান্সিং করে হাজার হাজার ডলার উপার্জন করা যায়? হ্যাঁ, অনেক ফ্রিলান্সারের রয়েছেন যাদের মাসিক আয় লাখ ডলার। এবার আসি মুল কথায়, সম্প্রতি ফ্রিল্যান্সিং শিখতে বিভিন্ন কোচিং সেন্টার ও সিডি সেলারের খপ্পরে পড়ছেন কেউ আছে  হাজার টাকাও খরচ করে ফেলেছন। কিন্তু যার কাছ থেকে কোর্স কিনেছেন সে নিজেই ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ে কিছুই জানেনা।

তাই বলবো যেনো তেনো মানুষের বা কোচিং সেন্টার থেকে কোর্স না কিনে পারদর্শী কোন বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান থেকে কোর্স করার জন্য। আর প্র্যাকটিক্যালি ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হলে একটি পরিপূর্ণ কোর্স করার কোনো বিকল্প নেই।

আমি আপনাদেরকে সাজেস্ট করব বাংলাদেশের স্বনামধন্য অনলাইন শিক্ষা পোর্টাল Robi 10 Minute School Freelancing Course  করার জন্য কারণ ফ্রিল্যান্সিং এ টু জেড বিষয় নিয়ে তারা শিক্ষার্থী সাথে বিস্তারিত আলোচনা করে থাকেন। আর কোর্সটি আপনি সহজেই অনলাইন থেকে ক্রয় করতে পারবেন।


ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করতে  এই লিংক থেকে ভিজিট করুন 


ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে কত টাকা আয় করা সম্ভব?

ফ্রিল্যান্সিং করে আপনি আপনার একটি সাধারণ সরকারি বা বেসরকারি চাকরির চেয়ে বেশি পরিমাণ আয় করতে পারবেন।  আপনি যদি মার্কেটপ্লেসে একদম নতুন হয়ে থাকেন তাহলে শুরুর দিকে আপনি মাসে 100 থেকে 200 ডলার ইনকাম করতে পারবেন। কাজ করতে করতে যখন দক্ষ হয়ে উঠবেন তখন আপনি প্রতিমাসে প্রায় 1 হাজার থেকে ২০০০ ডলার মিনিমাম আয় করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা লাগে

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং জগতে একদম নতুন হন তাহলে এটা শিখতে আপনাকে অনেক পরিশ্রমই হতে হবে। নির্দিষ্টভাবে কোন দীর্ঘমেয়াদি কোর্স যদি না করে থাকেন তাহলে কিছু একটা করা যাবে না বলে মনে হয় না। আর এতে আপনার টাকাও বেশি খরচ হবে না৷  আমাদের দেশে বর্তমানে 10 থেকে 15 হাজার টাকার ভিতরে মার্কেটপ্লেসের যেকোনো কাজের কোর্স করানো হয় তবে, কোর্স ভিত্তিক টাকা খরচের পরিমাণ ভিন্ন হতে পারে যেমন  যদি ওয়েব ডিজাইন শিখেন তাহলে মিনিমাম ১৫ হাজার টাকার ৬ মাস মেয়াদী কোর্স সম্পন্ন করতে হবে। অন্যান্যা ক্যাটগরি অন্যান্য খরছ।

ফ্রিল্যান্সিং করার উপায়

প্রথমত ইংরেজিতে আপনাকে দক্ষ হতে হবে। কারন মার্কেটপ্লেস এ সব বৈদেশিক ক্লায়েন্ট থাকে তাই কমিউনিকেশন এর জন্য ইংরেজী বাধ্যতামুলক। একটা মার্কেটপ্লেস ঘুরে দেখুন।  সেখানে বিভিন্ন ক্যাটাগরি দেখতে পাবেন। কোনটা আপনি ভালো পারেন বা কোনটায় আগ্রহ আছে আপনি সেটাই শিখবেন এবং সেটা নিয়েই কাজ করবেন, যদি দেখেন আপনার কম্পিউটার নেই তবে এমন ক্যাটাগরি দেখুন যে কাজ গুলো কম্পিউটার ছাড়াই করা যায়। যেমনঃ চ্যাটবোট তৈরি, পার্সোনাল এসিস্টেন্ট, ফেইসবুকের বিভিন্ন সার্ভিস ইত্যাদি। আর যদি আপনার কম্পিউটার থাকে তাহলে এমন সব কাজ শিখুন যেগুলোর মার্কেটে চাহিদা অধিক বেশি৷ যেমন ওয়েব ডিজাইন ও ডেভলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন, এস ই ও। ওয়ার্ডপ্রেস কাস্টমাইজেসন ইত্যাদি।

পরিশেষে একটাই কথা৷ কেউ আপনাকে এসে কাজ করে দিয়ে যাবে না৷ আবার কেউ এসে আপনার মাথার ভিতর ফ্রিল্যান্সিং ঢুকিয়ে দিবে না৷ আপনাকে নিজেকে নিজের প্রতিষ্ঠিত করতে হলো সর্বদা ফ্রিল্যান্সিং এর উপর অটুট থাকতে হবে। কখনো হাল ছেড়ে দেয়া চলবে না। ভালো করে ফ্রিল্যান্সিং শিখে মার্কেটপ্লেসে আসুন তাহলে কাজের অভাব হবে না৷ দক্ষ হতে পারলেই ফ্রিল্যান্সিং করে প্রতিষ্ঠিত হতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং এ বিভিন্ন ধরনের কাজের চাহিদা রয়েছে , তবে সবচাইতে বেশি ইনকাম হয় যেইসব কাজ এ সেগুলা নিচে দেয়া হলো;

  1. ওয়েব ডিজাইন
  2. গ্রাফিক্স ডিজাইন
  3. এন্ড্রয়েড এপ ডেভ্লপমেণ্ট
  4. ডিজিটাল মার্কেটিং
  5. SMM মার্কেটিং
  6. এস ই ও ( search engine optimization )
  7. ডাটা এন্ট্রি।
  8. কন্টেন্ট রাইটিং
  9. এডিটিং

যদিও একজন মানুষএর মধয়ে সব ধরনের দক্ষতা থাকেনা । তাই যেই কাজ তা আপনার কাছে সবচাইতে সহজ লাগবে আপনি সেটা নিয়া এগিয়ে জান । আশা করব ভাল ফলাফল পাবেন ভবিষ্যতে।

চাহিদা ভেদ এ বিভিন্ন কাজের বিভিন্ন ইনকাম পদ্দতি । অনেকটায় কম বা বেশি । তাই ইনকাম এর দিকে তাকিয়ে কোন লাভ হবেনা । আপম্নাকে আগে ভালো করে একটা কাজ শিখতে হবে। তারপর মারকেট এ কাজ করতে হবে।

7 Comments
  1. Prodip Moral says

    Very informative and helpful. Thank you sir.

    1. SHAFIQ says

      Thank For your comment

  2. Tamim says

    ভাইয়া আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর কোন ধরনের কাজটা কে সহজ করে দেখেন?
    এবং যেটা চাইলেই যে কেউ করতে পারবে?
    আর কন্টেন্ট রাইটিং সম্পর্কে যদি একটু ধারনা দিতেন তাহলে খুশি হতাম

    1. SHAFIQ says

      পারলে সব কাজ ই সহজ , না পারলে সহজ কাজ ও কঠিন। আমার মনে হয় ফ্রিল্যান্সিং এর সব থেকে সহজ কাজ হল ডিজিটাল মার্কেটিং, এর ভিতর সব থেকে আরো সহজ কাজ হলো কন্টেন্ট রাইটিং। এই যে আমার লেখা গুলো পরলেন এটা একটা কন্টেন্ট , আপনিও আমার মতন এভাবে কন্টেন্ট লিখতে পারেন , নিজের ওয়েবসাইট বানিয়ে অথভা হায়ারে কাজ করতে পারেন কোন এজেন্সির হয়ে

  3. Rokon says

    Content ta amar kache khub valo lagche ami khub valo vabe bujhte parchi.

  4. আলী says

    আমি ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ে কিছুই জানিনা, একবারেই নতুন আবার ইংরেজিতে দুর্বল কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং শেখার খুবই ইচ্ছা। ছোট চাকুরী করে(12/14ঘন্টা) কোন কোর্সে ভর্তি হওয়ার মতো সময় নাই, বলুন আমি কিভাবে শিখতে পারি….

    1. Shahriyar Shafiq says

      ফ্রিল্যান্সিং করে এমন কারো সহায়তা নিন অথবা যেকোন আইটি প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষণ নিতে পারেন অনলাইনে

Leave A Reply

Your email address will not be published.