অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন ১ মিনিটে

0

আসসালামুয়ালাইকুম। চলছে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচি 2022।  আর এই কর্মসূচিতে যারা নতুন ভোটার নিবন্ধন হতে চাচ্ছেন তারা সহজেই ভোটার আইডি কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন।   আপনি যদি ভোটার আইডি কার্ড এখনো করে না থাকেন তাহলে এই ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন করুন। আর যারা পূর্বে  ভোটার নিবন্ধন হয়েছেন কিন্তু ভোটার আইডি কার্ড এখন পর্যন্ত হাতে পাননি তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট অনেক গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে। পরবর্তীতে যখন ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে তখন সেই তালিকা থেকে আপনার যদি নাম  থেকে থাকে তাহলে এই পোস্টটি আপনি সংরক্ষন করে রেখে দিতে পারেন।

 

আমরা অনেকেই ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন করে বিদেশে চলে গিয়েছি কিন্তু দেশ থেকে ভোটার আইডি কার্ড টি সংগ্রহ করতে পারেননি।  আবার অনেকেই ভোটার আইডি কার্ড টা হারিয়ে ফেলেছি।  এ ছাড়াও অনেকে ভোটার আইডি কার্ড করার জন্য নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করার পরেও ভোটার আইডি কার্ড হাতে পাইনি।  এই সমস্ত লোক যারা ভোটার আইডি কার্ড টি শুরু করতে যাচ্ছেন অনলাইন থেকে তারা খুব সহজেই অনলাইন থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন পিডিএফ ফাইল। অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড টি কিভাবে সংগ্রহ করবেন এবং ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে আজকে আলোচনা করব।

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি প্রয়োজনীয়তা

ভোটার আইডি কার্ডের প্রয়োজন পড়ে না  এমন অফিশিয়াল কোন কাজকর্ম নেই।  আপনি যে সমস্ত জায়গায় সরকারি-বেসরকারি অফিশিয়াল আনঅফিসিয়াল কাজ করতে যাবেন আপনার পরিচিত প্রকাশের জন্য অবশ্যই আপনার ভোটার আইডি কার্ডের প্রয়োজন হতে পারে।  তাৎক্ষণিকভাবে আপনার কাছে ভোটার আইডি কার্ডের অরিজিনাল কপি না থাকার কারণে আপনি বিপদে পড়ে যেতে পারেন। আর এই জন্যই সব সময় ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করে অনলাইন কপি সংগ্রহ করে রাখা উচিত আমাদের।

ধরুন আপনি কোথাও ভ্রমণে গেলেন অথবা কোন কাজের উদ্দেশ্যে গেলে হঠাৎ করেই আপনার মনে পড়লো যে আপনার মানিব্যাগে আপনার ভোটার আইডি কার্ডটি নেই । হয়তো হারিয়ে গেছে আর না হয় আপনি ভুলে বাসায় রেখে এসেছেন। তখন আসলে কি করা উচিত আপনার? গুরুত্বপূর্ণ একটা কাজের সময় আপনার ভোটার আইডি কার্ডের না থাকে আপনার কাজটি বিলম্ব হতে পারে। আর এই  ঝুঁকিপূর্ণ কাজকর্ম থেকে এড়িয়ে যেতেই আমরা অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড  রেজিস্ট্রেশন করে রাখতে পারি। অনলাইন থেকে আইডি কার্ড রেজিস্ট্রেশন করার মাধ্যমেই আপনার ভোটার আইডি কার্ডটি পিডিএফ ফাইল আকারে ডাউনলোড করতে পারব এবং সেটি আমাদের মোবাইলে সেভ করে রাখতে পারব।  প্রয়োজন ক্ষেত্রে আমরা সেটি প্রিন্ট করে কাজে ব্যবহার করতে পারব। 

  • আপনার নামটি ভোটার লিস্টে এসেছে কিনা সেটা যাচাই করার জন্য এই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ুন

আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে হলে যা যা করতে হবে

অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য অবশ্যই আপনাকে রেজিস্টার করতে হবে নির্বাচন কমিশনের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে। এছাড়াও আরেকটি জিনিসের দরকার হবে সেটি হল ভোটার স্লিপ।  যখন আমরা ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচিতে আমাদের নাম দিয়ে নিবন্ধন করেছেন তখন আমাদেরকে ভোটার স্লিপ এর একটি অংশ দিয়ে দিয়েছিল সেখানে উল্লেখিত একটি নাম্বার পাওয়া যাবে।  ভোটার স্লিপ সাধারণত দেখতে নিচের ছবির মতন।

ভোটার স্লিপ । Voter Slip

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপির জন্য রেজিস্ট্রেশন

ভোটার আইডি কার্ডের জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন আপনার হাতে থাকা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল দিয়ে যেকোনো ব্রাউজার থেকে।  আপনি চাইলে কম্পিউটার দিয়ে এই কাজটি করতে পারবেন,  তবে কম্পিউটার দিয়ে কাজ করা একটু সুবিধাজনক।

ধাপ- ১

প্রথমে আপনাদেরকে চলে যেতে হবে নির্বাচন কমিশন অফিস ওয়েবসাইট nidw পোরটালে। গুগলে গিয়ে সার্চ করুন service.nidw.gov bd . প্রথম ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।  এরপর নিচের মত একটি ছবি দেখতে পাবেন এখান থেকে রেজিস্টার – Register বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ-২

রেজিস্টার এ ক্লিক করার পর নিচের মত একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন।এখানে আপনার ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার অথবা আপনার ভোটার স্লিপ থাকা এক সংখ্যার নাম্বারটি প্রদান করুন। 

  • এরপর আপনার  জন্ম নিবন্ধন থাকা জন্ম তারিখটি প্রদান করুন
  • একটি  ক্যাপচা থাকবে  সেটি পূরণ করতে হবে ,এবং সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ-৩

আপনার প্রদত্ত ইনফরমেশন গুলো সঠিক থাকলে আপনাকে আপনার স্থায়ী এবং অস্থায়ী ঠিকানা প্রদান করতে হবে পরবর্তী পেজে। যেমন আপনার বিভাগ,  জেলা, উপজেলা,  ইউনিয়ন সিলেকশন করে দিতে হবে।  পরবর্তী তে ক্লিক করলে আপনাদেরকে ফেইস ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করতে বলা হতে পারে।  প্রদত্ত ওয়েবপেইজে ভেরিফিকেশন কিভাবে করবেন সেটি দেওয়া থাকবে। হযরত স্মরণ করার জন্য একটি QRকোড পাবেন প্রদত্ত পেইজে। যেটি দেখতে হবে নিচের ছবির মতন।

ভোটার আইডি কার্ড চেক

এরপর গুগল প্লে স্টোর থেকে NID Wallet অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন টি ডাউনলোড করে উক্ত QR কোডটি স্কান করবেন এবং তার ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন তার  মুখমণ্ডল বামে ডানে এবং সোজা করে স্ক্যান করতে হবে।

photo nid wallet apk play store

ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করা হয়ে গেলে অটোমেটিক আপনাকে পরবর্তী পেজে নিয়ে যাওয়া হবে।  সেখান থেকে  আপনার অ্যাকাউন্টের জন্য আপনাকে একটি ইউজার নেম এবং পাসওয়ার্ড সেট করতে বলা হবে।  পরবর্তী লগ ইন করার জন্য একটি পাসওয়ার্ড প্রদান করবেন এবং ইউজার নেম দিবেন।  কারণ পরবর্তীতে যদি আমরা লগইন করতে পারি তাহলে যেকোনো সময় আমরা  ভোটার আইডি অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারব। পাসওয়ার্ড সেট করা হয়ে গেলে পরবর্তী পেজে ক্লিক করলে আপনাকে আপনার প্রোফাইলে নিয়ে আসা হবে নিচের ছবির মতন।

আপনি যদি আপনার ভোটার আইডি কার্ড সঠিকভাবে রেজিস্ট্রেশন করতে পারেন তাহলে উপরের ছবির মত একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন।  এখান থেকে যদি ডাউনলোড বাটন এ ক্লিক করেন তাহলে আপনার ভোটার আইডি কার্ড পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড হয়েছে আপনার কম্পিউটার বা মোবাইলে।  আপনি টি সংগ্রহ করতে পারেন আপনার মোবাইল মেমোরি কার্ডে অথবা অনলাইনে গুগোল ড্রাইভ সেভ করে রাখতে পারেন পরবর্তীতে ব্যবহার করার জন্য।

Leave A Reply

Your email address will not be published.