মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 2022

0

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট আজকের এই পোস্টে আমরা আলোচনা করতে যাচ্ছি কিভাবে আপনারা আপনাদের মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করে বিকাশে পেমেন্ট নেবেন।  সত্যিই কি মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট নেওয়া যায়?  তাহলে  মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করার সেই পদ্ধতি কি আসলে? কোন উপায় মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করবেন এবং বিকাশে পেমেন্ট নেবেন সেই প্রক্রিয়া সম্পর্কে আজকে সম্পন্ন সত্যতা যাচাই করব এবং আপনাদের নিকট তুলে ধরবো।

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় অর্থাৎ যেটাকে বলা হয় অনলাইনের মাধ্যমে টাকা ইনকাম, আপনারা যদি ওরজিনাল ভাবে এই সেক্টরে কাজ করতে চান যেটা অনেকেই অন্যরকম একটা নাম জানেন সেটা হল ফ্রিল্যান্সিং । যেটাই বলেন ফ্রিল্যান্সিং বা মোবাইল দিয়ে ইনকাম বা অনলাইনে ইনকাম আপনার যেটা মনে হয় সবই একই জিনিস । তো এই সেক্টরে কাজ করার জন্য আপনাদের হাতে বেশি একটা সময় নেই। কারণ বর্তমানে বাংলাদেশের বেকারত্বের সমস্যা যেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে  তেমনি বেকারত্ব দূর করার জন্য মানুষ অনলাইন জগত কে বেছে নিচ্ছে খুব বেশি। আর এই কারণে কম্পিটিশন এত বৃদ্ধি পাচ্ছে যে বলার বাহিরে। হয়তো এখন একটু কম্পিটিশন কম দেখা যাবে পাঁচ থেকে ছয় বছর পরে আপনি এই সেক্টরে সে খুব একটা বেশি সফলতা অর্জন করতে পারবেন না তাই এখনই সময় থাকতেই আপনি অনলাইন  জগতে ঢুকে পড়ুন। 

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট

 

  • গুরুত্বপূর্ণ কথা

যেহেতু অনেকেই অনলাইনের মাধ্যমে ইনকাম করতে চাচ্ছেন সেতু একটা  সমস্যা অনেকের মাঝে বিদ্যমান অনেকের কাছেই কম্পিউটার কেনার সামর্থ্য নেই তাই তারা মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট নিতে চাচ্ছে। আদৌ মোবাইল দিয়ে কতটা যুক্তিযুক্ত ভাবে  অনলাইন থেকে আয় করা সম্ভব?  যদি মোবাইল দিয়ে  টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট নিতে পারত তাহলে কম্পিউটার কিনে মানুষ কি করতো। আর কম্পিউটার না থাকলেও যে আপনি একেবারে মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করে পেমেন্ট বিকাশে নিতে পারবেন না এমনও নয়।  আপনি যদি অনলাইন থেকে আয়  করতে পারেন তাহলে শুধু বিকাশের মাধ্যমে পেমেন্ট নয় অন্যান্য উপায়ে মাধ্যমে আপনি পেমেন্ট নিতে পারবেন তবে এর আগে আপনাকে অনেক টাকা ইনকাম করতে হবে।

আরো দেখুনঃ

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট

আপনার অনেক আগে থেকে শুনে আসছেন অথবা বিভিন্ন সময় গুগলে সার্চ করে দেখে আসছেন মোবাইল দিয়ে  টাকা আয় করার উপায়। আজকের এই পোস্টটি আমি প্রধানত দুইটি বিষয় নিয়ে কথা বলবো প্রথমত হলো মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট এর মত ভুয়া এবং ভ্রান্ত ধারণা এবং মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার কিছু  উপায় রয়েছে এবং সেগুলো কি সেই বিষয়ে বিস্তারিত।তো চলুন প্রথমে  জানা যাক মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট এর নিয়ে ভুয়া এবং  ভ্রান্ত ধারণা গুলো যা মানুষের মাঝে এখনো বিরাজমান।

ক্লিক করে টাকা ইনকাম

অনলাইনে আমরা অহরহ বিভিন্ন বিষয়ে বিভিন্ন নিউজ পেয়ে থাকি অনেক সময় আমরা ফেসবুকে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন কমেন্ট বক্সে বিভিন্ন লিঙ্ক পেয়ে থাকি যেগুলো হয়তো সাধারণভাবে রেফারেল লিংক কোন নির্দিষ্ট সাইটের।  এবং সেখান এমন একটি লোভনীয় কথা উল্লেখ করা থাকে যেটা আপনি দেখে খুব চমকে যাবেন এবং আপনার ইচ্ছা করবে সেই লিংকে ক্লিক করার।  আপনি হয়তো ক্লিক করে দিয়েছেন  এবং ফলশ্রুতিতে আপনাকে একটি অ্যাকাউন্ট করতে হয়েছে। বিনিময়ে আপনাকে কিছু টাকা ওখানে শো করানো হলো কিন্তু সেই টাকা আপনি কখনোই তুলতে পারবেন না। এই হল ক্লিক করে টাকা ইনকাম করার একটি ভ্রান্ত ধারণা মানুষের মাঝে যা খুবই  প্রচলিত।  মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট এই সমস্ত পদ্ধতি হলো সম্পূর্ণ ভুয়া এবং ফেইক।

ভিডিও দেখে টাকা ইনকাম

ভিডিও দেখে টাকা ইনকাম করা অনেকটা সময় আগে সম্ভব হতো তবে সেটা খুব বেশি নয়।  ভিডিও দেখে টাকা ইনকাম করার মত একটি জনপ্রিয় এপ হল clips claps । আমি নিজেও এই এই অ্যাপে রেজিস্টার করে অনেক ভিডিও দেখেছি এবং কিছু কিছু ডলার ব্যালেন্সে যোগ করতে পেরেছিলাম কিন্তু কখনই সেই ডলার উইথড্র করতে পারিনি। অনেকেই হয়তো এই সফটওয়্যার থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে বলেছে কিন্তু আমি সেটা সত্যতা সম্পর্কে আপনাদেরকে সঠিকভাবে বলতে পারব না তবে আপনারা একবার চেষ্টা করে দেখতে পারেন। তবে আমার কাছে বিষয়টা ফেক মনে হয়। কিছুদিন আগেও টিকটক  লাইকি থেকেও আপনারা ফানি এবং মজার মজার ভিডিও দেখে টাকা ইনকাম করার মত সুবিধা পেতেন। আমি নিজেও টিকটক থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে পেরেছি ।  যদিও টিকটক এবং লাইকি অ্যাপস এখন এ ধরনের সুবিধা বন্ধ করে রেখেছে তাই এসব থেকে ভিডিও দেখে টাকা ইনকাম করার সুবিধা পাবেন না এবং মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট নেওয়ার এই পদ্ধতিটাও নির্ভরযোগ্য নয়।

অ্যাড দেখে টাকা ইনকাম

অ্যাড দেখে টাকা ইনকাম সবচাইতে মারাত্মক একটি পদ্ধতি।  সময়ের সব চাইতে আলোচিত এবং সমালোচিত অ্যাপ গুলোর মধ্যে এড দেখে ইনকাম করার অন্যতম ছিল Ring ID , SPC World যেখানে আপনি একটি একাউন্ট করে সেখানে মিনিমাম বারোশো টাকা ইনভেস্ট করে প্রতিদিন দুই থেকে তিনটি অ্যাড দেখতে পারতেন এবং  এর বিনিময়ে প্রতিদিন আপনি 10 থেকে 12 টাকা পেতেন।  তবেএর ভিতর একটি কথা ছিল আপনি যদি অনেক বেশি টাকা এই অ্যাপসে ইনভেস্ট করতে পারতেন তাহলে অনেক বেশি অ্যাড দেখে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারতেন।  অনেকে এরকম ইনভেস্ট করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পেরেছে কিন্তু পরবর্তীতে এই অ্যাপ গুলোতে অনেকে টাকা ইনভেস্ট করে লস খেয়েছে।  কারণ এই অ্যাপ গুলো সাধারণত অল্প সময়ের জন্য আসে মার্কেটে এবং মানুষের মাঝে একটি বিভ্রান্ত ধারণা দিয়ে এবং কিছু টাকা দিয়ে  মানুষের ব্রেইন ওয়াশ করে অনেক টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট এর এই পদ্ধতিও একদম নির্ভরযোগ্য নয় তাই আপনারা এই সমস্ত অ্যাড দেখে টাকা ইনকাম করার পদ্ধতি থেকে বিরত থাকবেন।

গেমস খেলে টাকা ইনকাম

আপনারা অনেক অনেক কিছু আছে যেগুলো থেকে আপনি খেলে টাকা ইনকাম করতে পারবেন যেমন লুডু গেম তিন পাত্তি ইত্যাদি।  এ সমস্ত গেম গুলো সাধারণত বেটিং টাইপের হয়। যেমন তিন পাত্তি কয়েন বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এবং আপনার এই গেম খেলতে হলে তিন পাত্তি কয়েন ক্রয় করে খেলতে হবে যেটি ইনভেস্ট  এর ব্যাপার-স্যাপার।  তবে আপনারা গেম লাইভ স্ট্রিম করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে যেমন ইউটিউব এবং ফেসবুক। আপনিতো খুব ভালো গেম খেলে থাকেন তাহলে আপনার গেম খেলা লাইভ স্ট্রিম করে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে টাকা আয় করতে পারেন। বর্তমানে সবচাইতে আলোচিত গেম ফ্রি ফায়ার এবং পাবজি কল অফ ডিউটি এবং অন্যান্য গেমগুলো মানুষ লাইভ স্ট্রিম করে অনেক টাকা  কামাচ্ছে। মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট নেওয়ার এই পদ্ধতিটা অনেকটা নির্ভরযোগ্য হলেও  খানিকটা অনিরাপদ এবং অনির্ভরযোগ্য।

উপরোক্ত যে সমস্ত পদ্ধতি গুলো বলা হয়েছে সেগুলো অনেকটা ফেইক যা নির্ভরযোগ্য নয়। আপনি যদি উপরোক্ত পদ্ধতি থেকে  দিনে 100 থেকে 200 টাকা সর্বোচ্চ ইনকাম করতে পারেন তাহলে আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে প্রায় সাত থেকে আট ঘণ্টার মতো। এই একটি হিসাব করলে আপনি মাসে তিন থেকে চার হাজার টাকার বেশি ইনকাম করতে পারবেন না। আর সেই টাকা ইনকাম করলেও  আপনি সেই টাকা উত্তোলন করতে পারবেন কিনা সেটার কোন গ্যারান্টি নেই। এরকম যদি হয় আপনার ইনকামের অবস্থা তাহলে আপনার ভবিষ্যৎ এর অবস্থা কি হবে?  আমার মনে হয় না এই সমস্ত গালতি আপনি আপনার জীবন চালাতে পারবেন। তাই মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট নেওয়ার এই সমস্ত ভুল এবং ভ্রান্ত ধারণা থেকে আপনাদের এবং আমাদের সকলকেই এড়িয়ে চলা উচিত।

 

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করা যাবে যে উপায়ে

মোবাইল দিয়ে ইনকাম করা যায় এরকম নির্ভরযোগ্য কিছু পদ্ধতি রয়েছে যে পদ্ধতি গুলো হল

  1. ব্লগিং
  2. ইউটিউবিং
  3. ছবি বিক্রি করে
  4. আর্টিকেল রাইটিং

এই সমস্ত পদ্ধতির মাধ্যমে আপনি ভবিষ্যৎ নির্ভরযোগ্য করে নিতে পারবেন।  যেমন আপনি যদি ব্লগিং শুরু করেন তাহলে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে আপনি আপনার লেখালেখি শুরু করবেন এবং সেখানে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে আপনি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন এটি একটি নির্ভরযোগ্য পদ্ধতি।

এছাড়াও আপনি যদি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে সেখানে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করেন সেখানেও আপনি  গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে আপনার চ্যানেল মনিটাইজেশন করে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি যদি ফটোগ্রাফি করতে পছন্দ করেন তাহলে আপনার তোলা সমস্ত মোবাইলের ফটোগ্রাফি  নিয়ে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে সেগুলো বিক্রি করতে পারবেন। সেখানে আপনার ছবিগুলো এক নির্দিষ্ট অ্যামাউন্ট সেট করে দেয়া হবে যত বেশি শেয়ার হবে তত বেশি আপনার ইনকাম হবে।

মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট নেওয়ার নির্ভরযোগ্য পদ্ধতি হচ্ছে আর্টিকেল রাইটিং। আপনি যদি খুব ভালো লেখা লিখি করতে পারেন তাহলে বিভিন্ন ম্যাগাজিন বা ব্লগ সাইটে আপনার লেখা প্রকাশ করে তাদের কাছ থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন সরাসরি বিকাশে। 

এই হলো অনলাইনে আয় করে বিকাশে পেমেন্ট নেওয়ার সমস্ত পদ্ধতি এবং ভুল ধারনা যা আমি আপনাদের কে বললাম।  অনির্ভরযোগ্য পদ্ধতি ছেড়ে আপনারা নির্ভরযোগ্য পদ্ধতিগুলোকে অনুসরণ করুন যার মাধ্যমে আপনি আপনার ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল করতে পারবেন এবং নির্ভরযোগ্য ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারবেন। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.